শুক্রবার, ১৪ অগাস্ট ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ৩০ শ্রাবণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বালাগঞ্জে তোফায়েল হোসেন এর ৩টি বইয়ের মোড়ক উম্মোচন



বা থেকে (সামনে) – প্রথম, ইউএনও দেবাংশু কুমার সিংহ ও চতুর্থ,  লেখক মাতুব্বর তোফায়েল হোসেন এবং অন্যান্যরা।

বালাগঞ্জের সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার (এইউইও) মাতুব্বর তোফায়েল হোসেন এর ৩টি বইয়ের মোড়ক উম্মোচন হয়েছে। বালাগঞ্জ ইউএনও অফিসের কার্যালয়ে মঙ্গলবার (২৫ ফেব্রয়ারি) তাঁর এ ৩টি বইয়ের মোড়ক উম্মোচন করেন বালাগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) দেবাংশু কুমার সিংহ। মোড়ক উন্মোচিত বইগুলো হলো – ফিরে দেখা বঙ্গবন্ধু, রাজনীতির কবি কথা ও একটি শ্লীলতাহানির মামলা।

বই তিনটির মোড়ক উম্মোচনের সময় লেখক মাতুব্বর তোফায়েল হোসেন ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন – উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুর রাকীব ভুইয়া, উপজেলা আনসার ভিডিপি ব্যাংকের মোশাহিদ হোসেন, বালাগঞ্জ উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি রজত চন্দ্র দাস ভুলন, উপজেলা প্রশাসনিক কর্মকর্তা সঞ্জয় চক্রবর্ত্তী, সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা সুব্রত দাস, উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মোঃ জুয়েল আহমদ, বালাগঞ্জ সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুল মুনিম, উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা ( অঃদাঃ) নির্মল চন্দ্র বনিক, শিক্ষক সঞ্জয় কুমার দাস ও মুজিবুর রহমান প্রমুখ।

লেখক মাতুব্বর তোফায়েল হোসেন একাধারে কবি, গল্পকার, ঔপন্যাসিক ও প্রাবন্ধিক। ছোটবেলা থেকেই তাঁর লেখালেখি শুরু। অনেকটা শখের বশবর্তী হয়ে। তবে তাঁর প্রথম গ্রন্থ প্রকাশিত হয় ২০০৮ সালে বিশাকা প্রকাশনী থেকে। কবিতার বই – ‘এক তৃতীয়াংশ অতীত দুই তৃতীয়াংশ ভবিষ্যত’। পরে ২০১৭ সালে প্রকাশিত হয় গল্পের বই ‘গল্প শুরুর আগে’। এবারের একুশে বই মেলায় প্রকাশিত হলো তাঁর তিনটি গ্রন্থ। এর মধ্যে দুটি গ্রন্থ মুজিব বর্ষে শত বইয়ের মধ্যে স্থান পেয়েছে।

ফেসবুকের বিভিন্ন সাহিত্য পাতায় এবং অনলাইন পত্রিকায় নিয়মিত লেখালেখি করেন লেখক মাতুব্বর তোফায়েল হোসেন। পেশায় সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার। সমাজ ও দেশের প্রতি দায়বদ্ধতার জায়গা থেকে তাঁর লেখার চর্চা অব্যাহত। পেশাগত ব্যস্ততার বাইরে ভ্রমণ, বই পড়া ও নানা বিষয়ে লিখে অবসর সময় পার করেন এই লেখক। ব্যক্তিগত জীবনে তিনি বিবাহিত। এক কন্যার জনক। জন্ম ১৯৮২ সালের ২৬ অক্টোবর ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলার পড়ারণ গ্রামে।

 

শেয়ার করুন:

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

error: Content is protected !!