শনিবার, ৩১ অক্টোবর ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ১৬ কার্তিক ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ব্যবসায়ী ও বাসিন্দাদের জনস্বার্থে অবিলম্বে ব্রিকলেইন খুলে দেয়ার দাবি



কারি ক্যাপিটাল খ্যাত ব্রিকলেন দিয়ে হঠাৎ করে যান চলাচল বন্ধ করায় বিপাকে পড়েছে ওখানকার ব্যবসায়ী ও স্থানীয় বাসিন্দারা। ব্যাপকভাবে মতামত যাছাই না করেই অন্যতম ট্যুরিস্ট আকর্ষণ পূর্ব লণ্ডনের গুরুত্বপূর্ণ এই সড়কটি বন্ধ করার ফলে বিভিন্ন ধরণের অসুবিধার সম্মুখীন হতে হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন ওখানকার ব্যবসায়ী ও বাসিন্দারা। একই সাথে বিষয়টি গুরুত্বসহকারে বিবেচনায় নিয়ে জনস্বার্থে অবিলম্বে ব্রিকলেন খুলে দেওয়ার দাবি জানান তারা। যথাযথ কনসালটেশন না করে ব্যবসা-বাণিজ্যকে সাহায্য করার কাউন্সিলের দাবীকে অহেতুক অসুস্থ পরিকল্পনা বলেও মন্তব্য করেন অভিযোগকারীরা। তবে টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের নির্বাহী মেয়রের পক্ষ থেকে দেয়া এক বিবৃতিতে ব্রিকলেনে যানবাহন চলাচল পরীক্ষামূলকভাবে বন্ধ করা হয়েছে বলে জানানো হয়েছে।

গত ১১ সেপ্টেম্বর, শুক্রবার স্থানীয় ব্যবসায়ী ও বাসিন্দাদের পক্ষ থেকে লণ্ডন বাংলা প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। হঠাৎ করে কাউন্সিল কর্তৃক রাস্তা বন্ধের ফলে তারা কি কি ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন সেসব বিষয় বিস্তারিতভাবে তুলে ধরেন তারা।এসময় বক্তব্য রাখেন ব্রিকলেন ফিউনারেল সার্ভিসের ডাইরেক্টর পারভেজ কুরেশী, ব্রিকলেনের ঐতিহাসিক তাজ স্টোরের সত্ত্বাধিকারী জামাল খালিক, আমার গাও রেস্টুরেন্টের তৈয়ব আলী সাজু, ক্যাটারার্স নেতা নাসির আহমদ এবং স্থানীয় বাসিন্দা ক্রিস ডাইসন।

উল্লেখ্য, রেস্টুরেন্টগুলোতে কাস্টমার ফেরানোর উদ্দেশ্যে ২৭ অগাস্ট থেকে আগামী ৫ নভেম্বর পর্যন্ত ৮ সপ্তাহের জন্য ব্রিকলেইনের ওপর দিয়ে গাড়ী চলাচল বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিল। এসময়ের মধ্যে রেস্টুরেন্ট মালিকরা তাদের রেস্টুরেন্টের সামনের ফুটপাতে চেয়ার-টেবিল বসিয়ে গ্রাহকদের খাবারের ব্যবস্থা করে দিতে পারবেন।
সংবাদ সম্মেলনে স্থানীয় ব্যবসায়ী ও বাসিন্দারা অভিযোগ করেন যে, বাংলা টাউনের ব্রিকলেইন এবং আশেপাশের কয়েকটি রাস্তা বন্ধ করে দেওয়ায় রেষ্টুরেন্ট, গ্রোসারীসহ অন্যান্য ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান ব্যাপক ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে। কারণ এভাবে রাস্তা বন্ধের ফলে স্বাভাবিকভাবে গাড়ি চলাচল বিঘ্নিত হচ্ছে। যার ফলে গ্রোসারি শপকে মালামাল নেওয়া, রেস্টুরেন্ট থেকে ডেলিভারি প্রেরণ কিংবা স্থানীয়দের কোনো ধরণের ডেলিভারি পেতে মারাত্মক অসুবিধার সৃষ্টি করছে। শুধু তাই নয়, স্থানীয় মসজিদ ব্রিকলেইনে মুসলিদের আসা-যাওয়া বিশেষ করে লাশবাহী গাড়ির যাতায়াতে চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। বিশেষ করে স্বাভাবিক যান চলাচল বন্ধের ফলে হেলথ এ- সেইফটির ক্ষেত্রে বিঘœতা সৃষ্টিসহ ড্রাগ ডিলারদের অভয়রাণ্য হওয়ার আশঙ্কা প্রকাশ করেন স্থানীয় বাসিন্দা ও ব্যবসায়ীরা।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, কভিড ১৯ এর খারাপ পরিস্থিতি কাটিয়ে ব্যবসায়ীরা যখন ঘুরে দাঁড়াতে চেষ্টা করছিলেন, তখনই কাউন্সিলের এই সিদ্ধান্ত ব্যবসায়ীদের আরো খারাপ দিকে নিয়ে যাচ্ছে। এই কয়েকদিনে ব্যবসা বহুলাংশে কমে গেছে।
লিখিত বক্তব্যে আরো বলা হয়, ব্রিকলেইন রেস্টুরেন্ট ব্যবসাসহ অন্যান্য বহুমাত্রিক ব্যবসার জন্য বিখ্যাত। এখানে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে মানুষ ঘুরতে আসে। তারা মূলত ট্যাক্সি এবং মিনিক্যাবেই আসেন কিন্তু বর্তমানে রাস্তা বন্ধ থাকায় বাইওে থেকে মানুষ আসা অনেকটা বন্ধ হয়ে গেছে। তাই ব্যবসারও ক্ষতি হচ্ছে। তারা গ্রোসারী দোকানগুলোতে পন্য পরিবহনে বাধার সম্মুখিন হচ্ছেন বলেও অভিযোগ করেন।
রাস্তা শক্ত করে ব্যারিকেড দিয়ে বন্ধ করার ফলে ইমাজেন্সি সার্ভিস যেমন, এ্যাম্বুলেন্স, ফায়ার সার্ভিস, ডাসবিন সংগ্রহকারী লরি রাস্তায় প্রবেশ করতে বাধার সম্মুখীন হচ্ছে এবং হবে।
স্থানীয় বাসিন্দা ও ব্যবসায়ীদের অভিযোগ, ব্রিকলেইনের রাস্তায় গাড়ী চলাচল বন্ধের পূর্বে তাদের সাথে তেমন পরামর্শ বা মতামত যাছাই করা হয়নি। তারা ব্রিকলেইন এবং এর আশপাশের বাসিন্দাদের সাথে এব্যাপারে ব্যাপকভাবে কন্সালটেশন করে সিদ্ধান্ত নিতে কাউন্সিলের প্রতি আহবান জান।

কাউন্সিলের বিবৃতি:
টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের মেয়র পক্ষ থেকে দেয়া এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে যে, কাউন্সিল ব্রিকলেইনে যানবাহন চলাচল পরীক্ষামূলকভাবে বন্ধ রেখেছে। বিবৃতিতে মেয়র জন বিগস বলেন, আমরা জানি ব্যবসা-বাণিজ্য এখন কঠিন সময় পার করছে। মানুষজন যাতে সহজে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে বাইরে বসে খেতে পারে তার ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। আর এজন্য রেস্টুরেন্টগুলোকে ফুটপাতে টেবিল চেয়ার রাখার অনুমতি দেয়া হয়েছে।

বিবৃতিতে আরো উল্লেখ করা হয়, ব্রিকলেইনের ফুটপাতে চেয়ার টেবিল রাখার অনুমতির জন্য রেস্টুরেন্ট মালিকরা দীর্ঘদিন দরে দাবী জানিয়ে আসছিলেন। আর তাই পরীক্ষামূলকভাবে স্বল্প সময়ের জন্য এটা চালু করা হয়েছে। যদি এটি কাজ না করে তাহলে আগের অবস্থায় ফিরিয়ে নেয়া হবে। আমরা আমাদের ব্যবসা বাণিজ্যকে সাহায্য করতে চাই, একই সাথে এলাকার পরিবেশরও উন্নয়ন চাই।

 

শেয়ার করুন:

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

error: Content is protected !!