শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ১৫ কার্তিক ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বালাগঞ্জ ওসমানীনগরে আমন আবাদ শেষ পর্যায়ে



বালাগঞ্জ ও ওসমানীনগর উপজেলায় চলতি মৌসুমে প্রায় সাড়ে ১৬হাজার হেক্টর জমিতে আমন আবাদের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। ইতোমধ্যে অন্তত ১৬হাজার হেক্টর জমিতে আমন রোপণ শেষ হয়েছে। বালাগঞ্জ উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে চলতি সেপ্টেম্বর মাসের শেষের দিকে রোপণ শেষ হবে। সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, এবার বন্যা দীর্ঘস্থায়ী না থাকায় আমন আবাদের পরিমাণ আরও বাড়তে পারে। এছাড়া চলতি বছর বালাগঞ্জ ও ওসমানীনগর উপজেলায় সাড়ে ৫হাজার হেক্টর জমিতে আউশ আবাদ হয়েছে।

সরেজমিন পরিদর্শনকালে দেখা গেছে, ইতোমধ্যে বালাগঞ্জ ও ওসমানীনগর উপজেলার প্রায় ৯৫ভাগ জমিতে আমন চাষাবাদ শেষ হয়েছে। আগামী ৮/১০ দিনের মধ্যে শতভাগ রোপণ শেষ হবে বলে স্থানীয় কৃষকরা জানিয়েছেন।
বালাগঞ্জ উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, বালাগঞ্জ উপজেলায় চলতি বছর উফশী এবং স্থানীয় জাতের মিলে ৮হাজার হেক্টর জমিতে আমন আবাদের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। ওসমানীনগর উপজেলায় উফশী এবং স্থানীয় জাতের মিলে আমন আবাদের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ৮হাজার ২শ ৫৬হেক্টর। সব মিলে বালাগঞ্জ ও ওসমানীনগর উপজেলায় আমন আবাদের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ১৬হাজার ২শ ৫৬হেক্টর। চলতি সেপ্টেম্বর মাসের শেষের দিকে রোপণ শেষ হবে বলে ধারণা করা যাচ্ছে। চলতি বছর বালাগঞ্জ উপজেলায় ২হাজার হেক্টর এবং ওসমানীনগর উপজেলায় ৩হাজার ৫শ হেক্টর জমিতে আউশ আবাদ হয়েছে।
বালাগঞ্জ উপজেলার কৃষক রফি মিয়া, রমিজ আলী, তেরাব আলী, ওসমানীনগর উপজেলার আব্দুল মিয়া, রুমেল আহমদ প্রমুখ জানান, আগামী ৮/১০ দিনের মধ্যে আমন রোপণ শেষ হতে পারে। চলতি বছর বন্যা দীর্ঘস্থায়ী না হওয়ায় আমন আবাদ বাড়তেও পারে। তারা জানিয়েছেন, মৌসুমে স্বাভাবিক বৃষ্টিপাত থাকায় চলতি বছর আউশ ফলন ভাল হয়েছে। আমন ফলনও ভাল হবে বলে স্থানীয় কৃষকরা আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন।
এ বিষয়ে আলাপকালে বালাগঞ্জ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. সুমন মিয়া জানান, চলতি বছর বন্যার পানি নেমে যাওয়ার পাশাপাশি আবহাওয়া অনুকুল থাকায় আমন আবাদের পরিমাণ লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যাবার সম্ভাবনা রয়েছে।

শেয়ার করুন:

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

error: Content is protected !!