সোমবার, ৫ ডিসেম্বর ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

দ্বিতীয় ওয়ানডেতে ৭ উইকেটের সহজ জয়

সিরিজ নিশ্চিত টাইগারদের



ওয়ানডে সিরিজ শুরুর পূর্বে জিম্বাবুইয়ান ওপেনার হ্যামিল্টন মাসাকাদজার হুঙ্কার ছিল স্বাগতিকরা নয় বরং তারাই ফেভারিট। সে হুঙ্কারেই কিনা ১ম ওয়ানডেতে ১৩৯ রানে ৬ উইকেট হারায় বাংলাদেশ! তারপর ইমরুলের বাঘের গর্জন এবং সেটাই ফের করলেন, তবে এদিন একা নয় বরং সঙ্গ দেয়ার জন্য এগিয়ে এলেন আরেক ওপেনার লিটন। এশিয়া কাপের ফাইনালে দু’ম্যাচ পূর্বের সেঞ্চুরি যেন ফিরে আসছিল কিন্তু আফসোস করেই ৮৩ তে ফিরেছেন। অন্যদিকে ইমরুল কায়েস টানা ২য় সেঞ্চুরির ৬ রান দূরে আচমকা শটে লং অফে ক্যাচ দিয়ে ফিরলেন।

তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে বুধবার (২৪ অক্টোবর) প্রথমে ব্যাট করে টেইলরের ৭৩ রানের কল্যাণে ২৪৬ রানের মাঝারি সংগ্রহ তুলে সফরকারীরা। সাইফউদ্দীন ৩ উইকেট নিয়ে দিনের সেরা বোলার। পেয়েছেন ম্যাচ সেরা পুরস্কার। টাইগাররা ২৪৭ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে ওপেনিংয়ে প্রতিযোগিতা করে রান তুলছিলেন লিটন-ইমরুল। মূলত ১৩৪ রানের পার্টনারশিপে ম্যাচ নিজেদের করে নেয় টাইগাররা। ইমরুল-লিটন ফিরে গেলে ম্যাচের পুরোপুরি দায়িত্ব নিজের কাঁধে নেন মুশফিক। শেষ পর্যন্ত ৪০* রানে মুশি আর ২৪* রানে মিঠুন আলী অপরাজিত থেকে ৭ উইকেটের জয় নিয়েই মাঠ ছাড়েন।

সাকিব-তামিম বিহীন বাংলাদেশ দলকে হয়তো মাসাকাদজা খাঁটো করে দেখছিলেন। কিন্তু তরুণরা দেখিয়ে দিল তারাও দায়িত্ব নিতে জানে। এতো শুধু সিরিজ জয় নয় যেন ভবিষ্যতের সাথে যোগাযোগ স্থাপনের একখণ্ড ছবি।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

জিম্বাবুয়ে: ৫০ ওভারে ২৪৬/৭ (মাসাকাদজা ১৪, জুয়াও ২০, টেইলর ৭৫, উইলিয়ামস ৪৭, সিকান্দার ৪৯, মুর ১৭, চিগুম্বুরা ৩, মাভুটা ৯*, টিরিপানো ৩*; মাশরাফি ১/৪৯, মুস্তাফিজ ১/৩৫, সাইফ ৩/৪৫, মিরাজ ১/৪৫, অপু ০/৪৩, মাহমুদউল্লাহ ১/২১)।

বাংলাদেশ: ৪৪.১ ওভারে ২৫০/৩ (লিটন ৮৩, ইমরুল ৯০, মাহমুদ ০, মুশফিক ৪০*, মিঠুন ২৪*; জার্ভিস ০/৩১, চাটারা ০/৪৮, টিরিপানো ০/২২, মাভুটা ০/৫৬, উইলিয়ামস ০/৪৩, সিকান্দার ৩/৪৩, জুয়াও ০/৬)

ফল: বাংলাদেশ ৭ উইকেটে জয়ী

সিরিজ: ৩ ম্যাচ সিরিজে বাংলাদেশ ২-০তে এগিয়ে

ম্যান অব দা ম্যাচ: মোহাম্মদ সাইফ উদ্দিন

শেয়ার করুন:

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

error: Content is protected !!