রবিবার, ২৬ জুন ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১২ আষাঢ় ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বিশ্বনাথে প্রবাসী সাংবাদিক রহমত আলীর জবরদখলকৃত ভূমি উদ্ধার



যুক্তরাজ্য প্রবাসী সাংবাদিক ও বিশ্বনাথ প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি জনাব রহমত আলীর লীজকৃত ১১শতক ভূমি  জবরদখল   হওয়ার পর বিশ্বনাথ উপজেলা ভূমি কর্মকর্তার বিশেষ উদ্যোগে সম্প্রতি তা উদ্ধার করা হয়েছে। এবং উদ্ধারের পর সীমানা চিহ্নিত করে বর্তমান চৌ-সীমানায় লাল পতাকা উত্তোলন করে জবরদখলকারীকে সেখানে  প্রবেশ করতে নিষেধ করা হয়েছে। বিষয়টি এলাকায় বেশ আলোড়ন সৃষ্টি করেছে।

ভূমি কর্মকর্তা ফাতেমা-তুজ-জোহরার উপস্থিতিতে উদ্ধাকৃত ভূমির সীমানা চিহ্নিত করে বর্তমান চৌ-সীমানায় লাল পতাকা উত্তোলন।

উল্লেখ্য,   জনাব রহমত আলী হিউম্যান রাইটস এন্ড পীস ফর বাংলাদেশ ইউকে’র সভাপতি ও লন্ডন থেকে প্রকাশিত মাসিক দর্পণ ম্যাগাজিনের সম্পাদক। জানা যায়,  জনাব  রহমত আলী ও তার ভাই আব্দুল আলী দীর্ঘদিন পূর্বে সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলার দশঘর মৌজার কয়েকটি খতিয়ান ও দাগনম্বরের সর্বমোট ২৮ শতক ভূমি সরকার থেকে লীজ নেন। এরপর প্রতিবছর তাঁরা সরকারী   খাজনা পরিশোধ করণপূর্বক ভোগদখল করে আসছেন। কিন্তু এক সময় রহমত আলী বিদেশ চলে আসলে তা তাঁর নিজগ্রাম বিশ্বনাথ   উপজেলার দশঘর নোঁয়াগাও এর জনৈক শরীফ উদ্দিনের দখলে চলে যায়।

সাংবাদিক মোঃ রহমত আলী (লীজকৃত ভূমির মালিক)

এমতাবস্থায় জনাব রহমত আলী কয়েক মাস পূর্বে দেশে গিয়ে তাঁর জমি ফিরে পাওয়ার জন্য বিশ্বনাথ উপজেলার ভূমি কর্মকর্তা   ফাতেমা-তুজ-জোহরার নিকট আবেদন পেশ করেন। তখন ভূমি কর্মকর্তা শরীফ উদ্দিনকে এ ব্যাপারে সংশ্লিস্ট ভূমি অফিসে হাজির হয়ে তার দখলের স্বপক্ষে কাগজপত্র প্রদর্শন করতে নোটিশ প্রদান করেন। কিন্তু শরীফ উদ্দিন সেখানে হাজির হয়ে কোন কাগজপত্র প্রদর্শন না করে একই গ্রামের মৃত আক্রম উল্লার দুই পুত্র আকবর আলী ও মকদ্দুছ আলীর নিকট থেকে তা ক্রয় করেছেন বলে   জানান। কিন্তু তাদের কেউই কোন কাগজপত্র প্রদর্শন করতে পারেন নি। এর পরও তাদের কয়েক দফা সময় দেয়া হয়। কিন্তু শেষ পর্যন্তও তারা কোন কাগজপত্র দেখাতে পারেন নি। এরপর বিষয়টি সরেজমিনে তদন্ত করার জন্য উক্ত ভূমি কর্মকর্তা,  সার্ভেয়ার,   দশঘর ভূমি অফিসের তহশীলদার সহ অন্যান্য কর্মকর্তা উক্ত ভূমি পরিদর্শনে যান। এক পর্যায়ে তাঁরা জায়গা পরিমাপ করে দেখতে পান যে, জনাব রহমত আলী ও তাঁর ভাইয়ের  অনুকুলে লীজকৃত মোট ২৮ শতক ভূমির মধ্য থেকে ১১শতক ভূমি শরীফ উদ্দিনের দখলে রয়েছে। তখন শরীফ উদ্দিনকে তার দখলদারিত্বের স্বপক্ষে আবারো কোন কাগজপত্র থাকলে তা প্রদর্শন করতে বলা   হয়।  কিন্তু তখনও  তিনি তা প্রদর্শন করতে ব্যর্থ হন।

অবশেষে, শরীফ উদ্দিনের দখল থেকে সে জমিউদ্ধার করে ভূমি লীজকারী জনাব রহমত আলী ও তাঁর ভাই আব্দুল আলীকে তাদের মালিকানায় সমজিয়ে দেয়া হয়। এ সময় শরীফ উদ্দিন, আকবর আলী সহ এলাকার লোকজন সেখানে উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য,   উক্ত ভূমি বিশ্বনাথ উপজেলার দশঘর নোয়াগাও গ্রাম সংলগ্ন। জে এল নং ১০১।

শেয়ার করুন:

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

error: Content is protected !!