বৃহস্পতিবার, ৮ ডিসেম্বর ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ক্ষমা প্রার্থনায় সম্পন্ন প্রথম পর্বের আখেরি মোনাজাত



টঙ্গীর তুরাগ তীরে ৫৪তম বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্বের আখেরি মোনাজাত শেষ হয়েছে। আজ শনিবার সকাল ১০টার দিকে শুরু হওয়া এই মোনাজাত চলে বেলা ১১টা পর্যন্ত। মোনাজাত পরিচালনা করেছেন মাওলানা মো. জুবায়ের। এতে অংশ নিয়েছেন দেশ-বিদেশের লাখো মুসল্লি।

মুরব্বীদের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, জুবায়েরপন্থীরা আজ আখেরি মোনাজাত শেষে মাঠ ছাড়বেন। আর সা’দপন্থীরা আগামীকাল ফজরের নামাজের পর মাঠে প্রবেশ করে দুদিন ইজতেমা পালন করবেন।

গতকাল শুক্রবার মাওলানা জোবায়েরপন্থীদের ব্যবস্থাপনায় প্রথম পর্বের ইজতেমা শুরু হয়। এর আগে বৃহস্পতিবার বাদ আসর থেকেই মূলত ইজতেমার কার্যক্রম শুরু হয়। এতে অংশ নেন দেশ-বিদেশের উলামায়ে কেরামারা।

বিশ্ব ইজতেমার প্রধান কর্মসূচি আমবয়ানে শুক্রবার অংশ নেন, বাদ ফজর : মাওলানা জিয়াউল হক (পাকিস্তান), বাদ জুমা : মাওলানা শেখ মোহাম্মদ গাস্সান (সৌদি আরব), বাদ আসর : মাওলানা জোহায়েরুল হাসান (ভারত), বাদ মাগরিব : মাওলানা ইব্রাহিম দেওয়ালা (ভারত)।

ইজতেমা উপলক্ষে ‘কহর দরিয়া’ পারের বিশাল চটের শামিয়ানার তল পূর্ণ হয়ে যায় বৃহস্পতিবার রাতেই। পরে খোলা আকাশের নিচে ঠাঁই নেয় অনেকে। এ অবস্থায় জুমার জামাতে শামিল হতে আসা মুসল্লিরা যে যেখানে জায়গা পেয়েছে, সেখানে দাঁড়িয়ে আদায় করেছে জুমার নামাজ।

গত দুই দিনে বিশ্ব ইজতেমা ও আশপাশের এলাকায় নেওয়া হয়েছে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা। ইজতেমা ময়দানের প্রতিটি খেত্তায় রয়েছে সাদা পোশাকের গোয়েন্দা তৎপরতা। দু-চার গজ পরপরই রয়েছে পুলিশের অবস্থান। ইজতেমার চারপাশে উঁচু ওয়াচ টাওয়ারে র্যাবের সার্বক্ষণিক পর্যবেক্ষণ রয়েছে। রয়েছে কিছুক্ষণ পর পর আকাশে হেলিকপ্টারে নিরাপত্তা বাহিনীর টহল।

আন্তর্জাতিক নিবাসে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের বাইরে অন্য কাউকে প্রবেশ করতে দেওয়া হয়নি। ইজতেমাস্থলে প্রবেশের প্রতিটি পথে রয়েছে র্যাব-পুলিশ ও ইজতেমা কর্তৃপক্ষের নিজস্ব নিরাপত্তা নজরদারি।

শেয়ার করুন:

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

error: Content is protected !!