বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

স্কলার্সহোমের ছাত্র ফাবিয়ান চৌধুরীর অপারেশন হয়েছে



ঢাকার একটি হাসপাতালে এখনও চিকিৎসাধীন স্কলার্সহোমের ছাত্র ফাবিয়ান চৌধুরীর কোমরের নিচে (বাম-পায়ে) মেজর অপারেশন হয়েছে। দুদিন পূর্বে এ অপারেশন হলেও সুস্থ্য হয়ে উঠার জন্যে বহুদিন লড়ে যেতে হবে ফাবিয়ানকে। এমতাবস্থায় ফাবিয়ানের পাশেই তার মা-বাবা উদ্বিগ্ন সময় কাঠাচ্ছেন প্রায় খাওয়া-দাওয়া ভুলে। সন্তানের এমন কঠিন মুহুর্তে কোন মা-বাবারই দানা-পিনা মুখে না উঠারই কথা। সন্তানের কষ্টে মা-বাবার ও কষ্ট হয়। সস্তান উফ্ করে ‍উঠলে মা-বাবা ও অজান্তে উফ্ করে ‍উঠেন। অসুস্থ সন্তানের পাশে মা-বাবার কাটে নির্ঘুম রাত। ফাবিয়ানের মা-বাবার ও কাটছে নির্ঘুম রাত। কিছুক্ষন পর পর ফাবিয়ান ব্যথায় কুকরে উঠছে। চোখের সামনে সন্তানের এমন অবস্থায় তার মা-বাবা স্থির থাকতে পাছেন না।  একমাত্র ছেলের এমন অবস্থায় শুধুই চোখের জল ফেলছেন আর আল্লাহর কাছে ছেলের পূর্ণ সুস্থতা কামনা করছেন।

এদিকে জানা যায়, স্কলার্সহোমের নিয়ন্ত্রণ অথরিটি হাফিজ মজুমদার ট্রাস্টের চেয়ারম্যান হাফিজ মজুমদার এমপি ফাবিয়ানকে দেখতে গিয়েছিলেন হাসপাতালে । সেখানে ফাবিয়ানের পরিবার ঘটনার আদ্যোপান্ত জানান ট্রাস্টের চেয়ারম্যান হাফিজ মজুমদার এমপিকে। এমন ঘটনায় এমপি ফাবিয়ানের পরিবারের কাছে দুঃখ প্রকাশ করেন। আরো জানা যায়,  স্কলার্সহোম কর্তৃপক্ষ ঘটনা তদন্তে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছিল, কিন্তু আজ অবধি তদন্তের কোন রিপোর্ট প্রকাশ হয়নি। তাই এব্যপারে আদৌ কোন তদন্ত হয়েছে কিনা কেউ জানেনা ।

ফাবিয়ান বলেছে, তাকে কেউ পেছন থেকে ধাক্কা দিয়ে স্কুলের ছাদ থেকে ফেলে দিয়েছে । তাই সচেতন মহল মনে করেন স্কুলের ছোট বাচ্চাদের নিরাপত্তার স্বার্থে বিষয়টি তদন্ত হওয়া উচিত এবং তদন্তের ফলাফল সকলের জানা দরকার । ছোট শিশুদের নিরাপত্তা প্রদানে স্কুল কতৃপক্ষ সুষ্ঠুভাবে দায়িত্ব পালন করেছিল কিনা, তাতে তাদের কোন গাফলতি ছিল কিনা তাও উদ্বিগ্ন অভিভাবকরা জানতে চান । স্বচ্ছ্বতার স্বার্থে ও অভিভাবকদের উদ্বেগ দুর করতে প্রকৃতপক্ষে সেদিন ফাবিয়ানের ক্ষেত্রে কি ঘটেছিল এবং কিভাবে ঘটেছিল সে বিষয়ে স্কুল কতৃপক্ষের বক্তব্য সুস্পষ্টভাবে বলা উচিত এমনটাই মনে করেন ফাবিয়ানের পিতা-মাতা ও স্কলার্সহোমের কোমলমতি শিক্ষার্থীদের উদ্বিগ্ন অভিভাবকরা।  

উল্লেখ্য, সিলেট নগরের বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান স্কলার্সহোমের শিবগঞ্জ ক্যাম্পাস থেকে চতুর্থ শেণির শিক্ষার্থী ফাবিয়ান চৌধুরী (১০)-কে গত ১৭ জুন মুর্মূর্ষু অবস্থায় স্কুল কর্তৃপক্ষ উদ্ধার করে তাঁর বাবাকে খবর দেন। পরে শিশুটির বাবা ফাহিম চৌধুরী মুর্মূর্ষু ফাবিয়ানকে নগরের আল হারামাইন হাসপাতালে নিয়ে যান। এরপর সঙ্কটাপন্ন অবস্থায় উন্নত চিকিৎসার জন্য ফাবিয়ানকে ঢাকায় প্রেরণ করা হয়। এর পর থেকে ফাবিয়ান এখনও ঢাকায় একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে।

এই ঘটনা সম্পর্কে পরিবারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, তাঁরা শুনেছেন ফাবিয়ান স্কুলের ৫ম তলার ছাদ থেকে পড়ে অচেতন হয়েছে। ফাবিয়ানের এই দুর্ঘটনা সিলেটের অভিভাবক মহলে উৎকন্ঠা সৃষ্টি করেছে। বিশেষ করে স্কুল কর্তৃপক্ষের নির্লিপ্ততায়।

শেয়ার করুন:

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

error: Content is protected !!