বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

দক্ষিণ সুরমায় ছাত্রলীগ কর্মীদের হামলায় সাংবাদিক নুরুল ইসলামসহ আহত ৩



রাজা সায়মন : দক্ষিণ সুরমা উপজেলায়  ছাত্রলীগ কর্মীদের অতর্কিত হামলায়  বাংলাদেশ ফটো জার্নালিস্ট এসোসিয়েশনের সাবেক প্রচার সম্পাদক, সিলেট প্রেসক্লাবের সহযোগী সদস্য ও দৈনিক সিলেটের দিনকালের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নুরুল ইসলাম গুরুতর আহত হয়েছেন।

এঘটনায় সাংবাদিক নুরুল ইসলাম ছাড়াও তাঁর ছোট ভাই দৈনিক সিলেটের দিনকালের স্টাফ রিপোর্টার নাইমূল ইসলাম ও কলেজ ছাত্র মাহিন আহমদ গুরুতর আহত হন। বর্তমানে তারা সিলেট এম.এ.জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।

গত বুধবার ৩ জুলাই  দুপুর দেড়টার দিকে উপজেলার সিলেট পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের সামনে এ ঘটনা ঘটে। এদিকে বুধবার সন্ধ্যায় দক্ষিণ সুরমা থানায়  আহত নুরুল ইসলাম নিজে বাদী হয়ে দক্ষিণ সুরমা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। যার নং- ০২ (০৩.০৭.২০১৯)।

মামলায় এজাহারনামীয় আসামীরা হলেন- মো. আরিফ, নয়ন, সম্রাট, বাঁধন, বক্কর সহ অজ্ঞাত ১৫/২০।

মামলার এজাহারে তিনি উল্লেখ করেন- সিলেট পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের ছাত্র রায়হান ইসলাম দীপুকে ছাত্রলীগের কিছু কর্মীরা মারধর করতে থাকে। তখন ওই রাস্তা দিয়ে দৈনিক সিলেটের দিনকাল অফিসে আসছিলেন সাংবাদিক নুরুল ইসলাম ও নাইমূল ইসলাম।

দীপুকে ছাত্রলীগ নেতারা মারতে দেখে তারা এগিয়ে গেলে কলেজ ছাত্রলীগ নেতা তাওহীদের নেতৃত্বে সম্রাট, আরিফ, শুভ, বক্কর সহ ছাত্রলীগ কর্মীরা তার উপর হামলে পড়ে।

দেশীয় অস্ত্র সস্ত্রে সজ্জিত হয়ে হামলাকারীদের এলোপাতাড়ী আঘাতে মাথায়, হাতে ও শরীরে রক্তাক্ত জখম হয় নুরুল ইসলামের। এসময় হামলাকারীদের নৃশংস আঘাতে নাইমূল ও মাহিন আহত হয়।

হামলাকারীরা নুরুল ইসলামের সাথে থাকা একটি ডি-৪০ ডিজিটাল স্টিল ক্যামেরা যার মূল্য ৬০ হাজার, নগদ ২৭ হাজার ৭৮০ টাকা, তার হাতে থাকা একটি কেসিও ঘড়ি ছিনিয়ে নিয়ে যায়।

সন্ত্রাসীদের হামলায় নুরুল ইসলাম, নাইমুল ইসলাম ও মাহিন চিৎকার শুরু করলে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়।

দক্ষিণ সুরমা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) খায়রুল ফজল মামলার সত্যতা স্বীকার করে বলেন- পুলিশ আসামীদের ধরতে অভিযান অব্যাহত রাখছে।

শেয়ার করুন:

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

error: Content is protected !!