বুধবার, ১৬ জুন ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২ আষাঢ় ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

মিরপুর টেস্ট

তৃতীয় দিনে শেষ বিকেলে বাংলাদেশ শিবিরে স্বস্তির হাওয়া



ঢাকা টেস্টের তৃতীয় দিনে লিটন কুমার দাস ও মেহেদী হাসান মিরাজের দারুণ এক জুটিতে প্রথম ইনিংসে শেষ পর্যন্ত ২৯৬ রান তুলেছে স্বাগতিকরা। এমনকি দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নামা ওয়েস্ট ইন্ডিজকে চেপে ধরেছে টাইগার বোলাররা। ফলে শনিবার ঢাকা টেস্টে শেষ বিকালে বাংলাদেশের ওপর দিয়ে বয়ে গেল স্বস্তির হাওয়া। দ্বিতীয় ইনিংসে সফরকারীরা ৪১ রান তুলতেই হারিয়েছে ৩ উইকেট। দিন শেষে উইন্ডিজের লিড বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৫৪ রান। উইকেটে অপরাজিত আছেন ওয়ারিকান ২ ও এনক্রুমা বোনার ৮রান। সফরকারীদের হাতে এখনো ৭টি উইকেট আছে। তাই লিড যে বাড়বে তা নিশ্চিত। তবে বাংলাদেশি বোলাররা লিডটা আড়াইশর মধ্যে রাখতে পারলে মুমিনুলদের টেস্ট জয়ের ভালো সুযোগ তৈরি হবে। আজ শেষ বিকেলে বাংলাদেশি স্পিনাররা যেভাবে বোলিং করলেন তাতে এমন প্রত্যাশা করাই যায়। এদিন দলীয় ১১ রানের মাথায় ওয়েস্ট ইন্ডিজের অধিনায়ক ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েটকে ফেরান নাঈম হাসান। দলীয় ২২ রানের মাথায় মোসলেকে সৌম্য সরকারের ক্যাচ বানিয়ে টেস্ট ক্যারিয়ারের একশ উইকেটের মাইলফলক স্পর্শ করেন মেহেদি হাসান মিরাজ। ২৪তম টেস্ট খেলতে নেমে একশ টেস্ট উইকেট পেলেন মিরাজ, বাংলাদেশের পক্ষে যা দ্রæততমর রেকর্ড। এরপর দিনের শেষভাগে জন ক্যাম্পাবল তাইজুল ইসলামের বলে বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফিরেন।

এর আগে ব্যাট হাতে বেশ দাপটেই লড়াই করেন লিটন কুমার দাস ও মেহেদি হাসান মিরাজ। তারা দুজন যখন উইকেটে তখন বাংলাদেশের ফলোঅনের শঙ্কা প্রবল। সেখান থেকে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে পেরেছেন দুই তরুণ। তারা দুজনেই উইকেট আগলে রেখে ধীরে ধীরে এগুতে চেয়েছেন। সপ্তম উইকেটে ১২৮ রানের জুটির পথে ফিফটি পেয়েছেন লিটন-মিরাজ। কিন্তু চা বিরতির পর যেন হঠাৎ সব এলোমেলো হয়ে গেল। রাকিম কর্নওয়ালের নিচু হওয়া এক ডেলিভারিতে সুইপ করতে গিয়ে ক্যাচ আউট লিটন। ১৩৩ বল খেলে ৭টি চারের সাহায্যে ৭১ রান করে ফিরেছেন ডানহাতি ক্রিকেটার। পরের ওভারে ফিরে যান মেহেদি হাসান মিরাজও। তিনি ১৪০ বল খেলে ৬টি চারের সাহায্যে ৫৭ রান করে সাজঘরে ফিরেন। তারপর আর কেউ উইকেটে থিতু হতে পারেনি। নাঈম হাসান শূন্য, তাইজুল ১৩ ও রাহি ১ রান করেন।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের পক্ষে কর্নওয়াল ৭৪ রান খরচায় নিয়েছেন ৫ উইকেট। শ্যানন গ্যাব্রিয়েল ৩টি ও আলগরি জোসেফ ২টি উইকেট নিয়েছেন।

এদিকে দিনের শুরুতে বাংলাদেশের পক্ষে প্রথম প্রতিরোধটা গড়েছিলেন মুশফিকুর রহিম ও মোহাম্মদ মিঠুন। গতকাল ইনিংসের শুরুতেই বিপদে পড়া বাংলাদেশের হাল ধরা মিঠুন-মুশফিক আজ সকালেও দারুণভাবে সামলেছেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের বোলিং আক্রমণ। তবে মুশফিক ফিফটি পেলেও বড় স্কোর খেলতে ব্যর্থ হয়েছেন মিঠুন। ৮৬ বল খেলে ১৫ রান করে ফিরেছেন মিঠুন। মুশফিক ১০৫ বল খেলে ৫৪ রান করে আউট হয়েছেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১ম ইনিংস: ৪০৯

বাংলাদেশ ১ম ইনিংস: (আগের দিন ১০৫/৪) ৯৬.৫ ওভারে ২৯৬ (মুশফিক ৫৪, মিঠুন ১৫, লিটন ৭১, মিরাজ ৫৭, নাঈম ০, তাইজুল ১৩*, আবু জায়েদ ১; গ্যাব্রিয়েল ২১-৩-৭০-৩, কর্নওয়াল ৩২-৮-৭৪-৫, জোসেফ ১৭.৫-৩-৬০-২, মেয়ার্স ৮-২-১৫-০, ওয়ারিক্যান ১৩-২-৪৮-০, বনার ৩-০-১৭-০, ব্র্যাথওয়েট ২-০-৭-০)।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ২য় ইনিংস: ২১ ওভারে ৪১/৩ (ব্র্যাথওয়েট ৬, ক্যাম্পবেল ১৮, মোজলি ৭, বনার ৮*, ওয়ারিক্যান ২*; তাইজুল ৭-২-১৩-১, নাঈম ১০-৩-১৪-১, মিরাজ ৪-০-১৪-১)

শেয়ার করুন:

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

error: Content is protected !!