শুক্রবার, ৭ অক্টোবর ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ২২ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বালাগঞ্জে মাদ্রাসা ছাত্রী ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত দুই ধর্ষক গ্রেপ্তার



অভিযুক্ত ধর্ষক আব্দুল আহাদ (বায়ে) ও আজই মিয়া

বালাগঞ্জে মাদ্রাসা ছাত্রী ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত শিওরখাল গ্রামের আবদুল করিম তালুকদারের ছেলে আব্দুল আহাদ ও স্থানীয় ইউপি সদস্য আইয়ুব উল্লাহর ছেলে একই গ্রামের আজই মিয়াকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন বালাগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ গাজী মো. আতাউর রহমান। ২৪ নভেম্বর (শনিবার) সন্ধ্যায় পুলিশ অভিযান চালিয়ে উপজেলার জামালপুর গ্রাম থেকে তাদের গ্রেপ্তার করে।

উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বালাগঞ্জ উপজেলার দেওয়ান বাজার ইউনিয়নের খায়রুন্নেছা দারুচ্ছুন্নাহ্ ইসলামিয়া আরাবিয়া মহিলা মাদ্রাসার সপ্তম শ্রেণির এক ছাত্রী গণধর্ষণের শিকার হয়। এ বিষয়ে শুক্রবার ভিকটিমের পিতা বাদী হয়ে বালাগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা নং -৮(২৩/১১/২০১৮। মামলায় আটকৃত দুজনসহ অজ্ঞাতে আরো ৪জনকে আসামী করা হয়।

এদিকে ২৪ নভেম্বর (শনিবার) বাদ আছর স্থানীয় মোরারবাজারে ধর্ষকদের গ্রেপ্তারের দাবিতে যুবসমাজের উদ্যোগে সর্বদলীয় এক প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সভায় সভাপতিত্ব করেন দেওয়ান বাজার ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি কয়ছুল আলম কয়েছ এবং পরিচালনা করেন ছাত্রলীগ নেতা রাজু আহমদ। প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন দেওয়ানবাজার ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আ ফম শামীম, দেওয়ান আব্দুর রহিম হাইস্কুল এন্ড কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মো. খলিলুর রহমান, ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি মো. সুরুজ আলী মেম্বার, আওয়ামী লীগ নেতা মো. দিলু মিয়া, ইছরাব আলী, বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস নেতা মাওলানা মুহিবুর রহমান, জমিয়তে উলামা ইসলাম বালাগঞ্জ উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক মাওলানা আব্দুস ছালাম, সমাজকর্মী জুনেদ মোহাম্মদ মিয়া, ব্যবসায়ি মুজিবুর রহমান, সায়েস্ত মিয়া, উপজেলার যুবলীগের যুগ্ন আহবায়ক মইনুল ইসলাম সালেহ, সাবেক ইউপি সদস্য নেছাওর আলী, আব্দুস ছালাম, বর্তমান সদস্য জামাল আহমদ, আহমদ আলী, শামছুল ইসলাম ইরন, উপজেলা কৃষক লীগের যুগ্ন আহবায়ক মো. তারা মিয়া, যুবলীগ নেতা মুক্তার মিয়া, আব্দুস শহিদ খান, ব্যবসায়ি মো. রকিব আলী, যুব নেতা সিতাব আলী, শফিক মিয়া, আব্দুল করিম, জয়নাল আবেদীন, খান, শাহিন আলম, জুনেদ আহমদ, রমুজ মিয়া, খন্দকার কামাল আহমদ, ইকবাল আহমদ, আব্দুল জলিল মখন, সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ সভাপতি এমরুল আহমদ, ছাত্রলীগ নেতা জাকির হোসেন, শেখ রাসেল জাতীয় শিশুকিশোর পরিষদ ইউনিয়ন শাখার সভাপতি শিহাবুল হক অনিক, ছাত্র নেতা নাসিম আহমদ, ইমরান আহমদ, হৃদয় চৌধুরী, জুনু মিয়া, রুহেল আহমদ প্রমুখ।

বিপুল সংখ্যক প্রতিবাদী মানুষের এই সভায় বক্তারা ধর্ষণের ঘটনার সাথে জড়িতদের গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়ে বলেন, অপরাধীরা কোন দলের লোক নয় ওরা নরপশু। অভিলম্বে গ্রেপ্তারের মাধ্যমে অপরাধীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির জোরদাবি জানাচ্ছি।

একই দাবিতে শনিবার সন্ধ্যায় স্থানীয় মাদ্রাসা বাজারে যুব সমাজের উদ্যোগে এক প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়। দেওয়ান আব্দুর রহিম হাইস্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষক রুহুল আমিনের পরিচালনায় প্রতিবাদ সভায়, জামিয়া ইসলামিয়া হুসাইনিয়া গহরপুরের মুহতামিম হাফিজ মাওলানা মুসলেহ উদ্দিন রাজু, সিলেট জেলা পরিষদের সদস্য মো. লোকন মিয়া, ইউপি সদস্য আমির উদ্দিন রতন, মাওলানা আব্দুল কাইয়ুম, আফসার আহমদ, মাওলানা আব্দুস ছালাম, মাওলানা সাইফুল ইসলাম যুবনেতা ময়নুল হক, সুহেল বারী, আব্দুস ছালাম, সেবুল মিয়া, শুভ লস্কর, ছালেহ আহমদসহ এলাকার গণ্য গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ বক্তৃতা করেন।

তার আগে দুপুরে সিলেটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইমাম মোহাম্মদ শাদিদ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এ সময় তিনি এলাকাবাসীর সহযোগীতা কামনা করে বলেন, ধর্ষণের সাথে জড়িতদের গ্রেপ্তারের সর্বাত্মক চেষ্টা চলছে। খুব শীঘ্রই তাদের গ্রেপ্তার সম্ভব হবে ইনশাআল্লাহ।

শেয়ার করুন:

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

error: Content is protected !!