শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সৎসঙ্গ পাঠাগার শান্তিনিকেতন কর্তৃক কবি এ কে এম আব্দুল্লাহ’কে সম্মাননা এওয়ার্ড প্রদান



সফিকুর রহমান চৌধূরী: সাধনাই সফলতা টেনে আনে। কথাটা সর্বজন স্বীকৃত। যার ধারাবাহিকতায় অনেকের মতো ধরে রেখেছেন মুক্তিযুদ্ধ আর দেশপ্রেম যার চেতনার ধারক, বাহক সেই  প্রেমের কবি যুক্তরাজ্যে বসবাসরত এ কে এম আব্দুল্লাহ।

যার কবিতায় রয়েছে নিজস্বতা, রয়েছে দর্শন। যার কবিতার মায়াজালে মুগ্ধ পাঠকহৃদয়। যিনি প্রবাসের ব্যস্ততার ফাঁকে লিখে চলেছেন দেশের টানে, মানুষের টানে।

অন্যায় অনিয়মে জেগে ওঠছে তার কলম সবসময়। বাংলাদেশ সহ বিভিন্ন দেশের পত্র পত্রিকায় লিখছেন নিয়মিত। ইতিমধ্যে প্রকাশিত হয়েছে তার লেখা কয়েকটি বই।

যার মধ্যে ২০১৮ সালে তাঁর প্রকাশিত ‘যে শহরে হারিয়ে ফেলেছি করোটি’ কাব্যগ্রন্থটি এখন দেশ ছড়িয়ে কবিগুরু রবীন্দ্রনাথের  স্মৃতিবিজড়িত শান্তি নিকেতন এর ‘সৎসংঘ পাঠাগার’ এর এক দশক পুর্তিতে দক্ষিণ এশিয়ার (জমাকৃত কবিতা বই’র) সেরা দশটি বই এর অন্যতম নির্বাচিত হয়েছে।

গত ৩ জানুয়ারী ২০১৯, জনমঙ্গল হিলসিটি হল, বোলপুর- এ জাকজমক গুণীজন সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের মাধ্যমে কবি এ কে এম আব্দুল্লাহকে কবিতায় সম্মাননা এওয়ার্ড প্রদান করেছে সৎসঙ্গ পাঠাগার।

সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, প্রফেসর ড. অনুপম রায় চৌধূরী, কাব্য বিশারদ( দিল্লি )। পুরষ্কার প্রাপ্তদের মধ্যে রয়েছেন: পাকিস্তানের দুইজন / শ্রীলংকার দুইজন / চায়নার একজন/ ফিলিপাইনের একজন / ভারতের দুইজন এবং বাংলাদেশের দুইজন।

বাংলাদেশের একজন হচ্ছেন কবি এ কে এম আব্দুল্লাহ।

বাংলাদেশী কবিদের এই বিরল সম্মান অর্জন করায় আমরা তাদেরকে আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। উল্লেখ্য, গতবছর কবি এ কে এম আব্দুল্লাহকে কবিতার জন্য ভারতের রাজস্থানের ড.শ্যাম সুন্দর মেমরিয়াল ট্রাস্ট কর্তৃক স্মৃতিস্বর্ণপদক প্রদান করা হয়।

শেয়ার করুন:

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন