মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১২ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

কাশ্মীরে আকাশ যুদ্ধ : ভারতীয় বিমান বাহিনীর একটি হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত



কাশ্মীরের বুদগামে ভারতীয় বিমানটির ধ্বংসাবশেষ। ছবি : সংগৃহীত

ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের বুদগাম শহরে ভারতীয় বিমান বাহিনীর রাশিয়ার তৈরি এমআই -17 একটি হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় ওই হেলিকপ্টারের দুই পাইলটও নিহত হয়েছেন।

আজ বুধবার সকাল বুধবার স্থানীয় সময় ১০টা ৫ মিনিটে বুদগাম শহরের গারেন্দ কালান গ্রামের একটি উন্মুক্ত মাঠে হেলিকপ্টারটি বিধ্বস্ত হয়। খবর পেয়ে দ্রুতই ঘটনাস্থলে ছুটে যায় স্থানীয় পুলিশ।

এ ব্যাপারে বুদগাম শহরের সিনিয়র পুলিশ সুপার (এসএসপি) বলেন, শিগগিরই ভারতীয় বিমান বাহিনীর প্রযুক্তিগত দল এসে পৌঁছাবে এবং ঘটনাটি খতিয়ে দেখবে। এখন পর্যন্ত আমরা দু’টি মরদেহ উদ্ধার করেছি।

কর্তৃপক্ষ জানায়, বিধ্বস্তের পর বিমানটি দু’ভাগ হয়ে যায় এবং এতে আগুন ধরে যায়। সেসময় একটি মরদেহ দেখা যায়।

গতকাল ভারতের বিমান হামলার পর প্রতিশোধের সতর্কবার্তা ছড়িয়ে পড়ায় এই এলাকাটিকে উচ্চ সতর্কতার স্থানের মধ্যেই ধরা হয়েছিল।

এদিকে বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, পাকিস্তানের সেনা মুখপাত্র মেজর জেনারেল আসিফ গফুর দাবি করেছেন যে তাদের বিমান বাহিনী ভারতীয় দু’টো বিমানকে ভূপাতিত করেছে এবং একজন ভারতীয় পাইলটকে গ্রেফতার করেছে।

সংবাদ সংস্থা পিটিআই এবং রয়টার্স জানাচ্ছে, ভারত শাসিত কাশ্মীরের রাজৌরি জেলায় নওশেরা সেক্টরে কয়েকটি পাকিস্তানী যুদ্ধ বিমান থেকে বোমা ফেলা হয়।

মেজর জেনারেল আসিফ গফুর টুইট করে জানিয়েছেন যে সকালে ভারতে বোমাবর্ষণের পরে দুটি ভারতীয় বিমান নিয়ন্ত্রণ রেখা পেরিয়ে পাকিস্তানী আকাশ সীমায় ঢুকে পড়েছিল।

তিনি জানান, দু’টিকেই গুলি করে নামানো হয়েছে – একটি বিমান পাকিস্তান শাসিত এলাকায় ভেঙ্গে পড়ে, অন্যটি ভূপাতিত হয়েছে ভারত শাসিত এলাকায়।

পাকিস্তানী অঞ্চলে ভেঙ্গে পড়া ভারতীয় বিমানটির পাইলটকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলেও তিনি জানান।

এবিষয়ে ভারতের কর্তৃপক্ষ আনুষ্ঠানিক কোনো বিবৃতি প্রকাশ না করলেও ভারতীয় বিমানবাহিনীর একটি সূত্র বিবিসিকে জানিয়েছে, তাদের সব পাইলটেরই হিসাব পাওয়া গেছে।

মনে করা হচ্ছে এর অর্থ, কোনও পাইলটই পাকিস্তানের মাটিতে গ্রেপ্তার হন নি বা কেউ মারা যান নি।

পাকিস্তানে বিবিসির একজন সংবাদদাতা নিশ্চিত করেছেন যে পাকিস্তানের সীমান্তের ভেতরে একটি ভারতীয় ফাইটার বিমান বিধ্বস্ত হয়েছে।

পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একটি বিবৃতিতে বলা হয় যে পাকিস্তানের আকাশসীমার মধ্য থেকেই আজ লাইন অব কন্ট্রোলের অন্যপাশে আক্রমণ চালিয়েছে পাকিস্তান বিমান বাহিনী।

পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ড. মুহম্মদ ফয়সাল বলেন, “পাকিস্তানের বিমান বাহিনী নিজেদের সীমানার মধ্যে থেকেই নিয়ন্ত্রণ রেখার অন্যদিকে বোমা ফেলেছে। ভারত যা করেছে, এটা তার জবাব নয়। তাই বেসামরিক এলাকাকে নিশানা করা হয়েছিল, এবং এটাও খেয়াল রাখা হয় যাতে জানমালের ক্ষতি না হয়।”

পাকিস্তানের তরফে এটাও বলা হচ্ছে যে তারা উত্তেজনা বৃদ্ধি চায় না, কিন্তু যদি সে পথেই যেতে তাদের বাধ্য করা হয়, তাহলে যে পাকিস্তানী বাহিনী সম্পূর্ণ প্রস্তুত, তা প্রমাণ করতেই দিনের আলোয় এই অপারেশন চালানো হয়েছে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স অবশ্য ভারতীয় কর্মকর্তাদের সূত্র উদ্ধৃত করে জানাচ্ছে যে তিনটি পাকিস্তানী যুদ্ধ বিমান ভারত শাসিত কাশ্মীরের আকাশ সীমায় ঢুকে পড়েছিল।

আর পিটিআই বলছে ভারতীয় বিমানবাহিনী পাকিস্তানের বিমানগুলিকে ধাওয়া করে ।

এদিকে, কাশ্মীরের শ্রীনগর থেকে বিবিসি সংবাদদাতারা জানাচ্ছেন, রাজৌরি আর পুঞ্চ সেক্টরে নিয়ন্ত্রণ রেখা কাছাকাছি এলাকা থেকে সাধারাণ মানুষরা পালিয়ে যাচ্ছেন।

শ্রীনগর, জম্মু, লেহ, চন্ডীগড় – এই চারটি বিমানবন্দর বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। সব ধরনের বেসামরিক বিমান ওঠানামা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

শেয়ার করুন:

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

error: Content is protected !!