শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

এবারের বিশ্বকাপেও নেই বাংলাদেশের আম্পায়ার



বিশ্বকাপ ক্রিকেটের গ্রুপপর্বের জন্য মোট ২২ জন অফিশিয়ালের নাম ঘোষণা করেছে আইসিসি। এর মধ্যে ৬ জন ম্যাচ রেফারির দায়িত্ব পালন করবেন আর ১৬ জন থাকবেন আম্পায়ারের দায়িত্বে। বাংলাদেশের কারও জায়গা হয়নি এ তালিকায়। অথচ বিশ্বকাপে সুযোগ না পাওয়া জিম্বাবুয়েরও একজন প্রতিনিধি থাকছে টুর্নামেন্টে। অ্যান্ডি পাইক্রফটকে দেখা যাবে ম্যাচ রেফারি হিসেবে।

২০০৩ কিংবা ২০০৭ বিশ্বকাপে ম্যাচ অফিশিয়ালদের তালিকায় বাংলাদেশের কেউ ছিলেন না। তবে ২০১১ বিশ্বকাপে রিজার্ভ আম্পায়ারের তালিকায় ছিলেন বাংলাদেশের এনামুল হক। গত বিশ্বকাপেও ম্যাচ অফিশিয়ালদের তালিকায় কোনো বাংলাদেশির জায়গা হয়নি। ২০১৮-১৯ মৌসুমে আইসিসির আন্তর্জাতিক প্যানেলভুক্ত বাংলাদেশের চার আম্পায়ার হলেন—শরফুদ্দৌলা ইবনে সৈকত, তানভীর আহমেদ, মাসুদুর রহমান মুকুল ও গাজী সোহেল। কিন্তু তাঁদের কারও জায়গা হয়নি আইসিসি ঘোষিত বিশ্বকাপের ম্যাচ অফিশিয়ালের তালিকায়। বিষয়টি ভাবাচ্ছে বিসিবিকেও।

বিসিবির মিডিয়া কমিটির প্রধান জালাল ইউনুস সাংবাদিকদের সে উদ্বেগের কথাই বললেন, ‘অনেক দিন হলো আমরা ভালো মানের আম্পায়ার পাচ্ছি না, এটা সত্য। এনামুল হক মনি, সৈকত (শরফুদ্দৌলা) বা আগে যারা ছিল তারা হয়তো বিশ্বকাপে আম্পায়ারিং করেনি। তবে আইসিসির অনেক টুর্নামেন্টে দায়িত্ব পালন করেছে। এখন সে ধরনের আম্পায়ারও পাচ্ছি না। এটা বড় একটা সমস্যা। এ দিকে আমাদের নজর দিতে হবে।’

ভালো মানের আম্পায়ার তৈরিতে প্রশিক্ষণ দেওয়া কিংবা বড় বড় ম্যাচে দায়িত্ব দেওয়ার কথা বললেন জালাল ইউনুস, ‘প্রশিক্ষণ দিতে হবে। বড় ম্যাচে দায়িত্ব দিতে হবে। শুধু ঘরোয়া ক্রিকেট আম্পায়ার তৈরির জন্য যথেষ্ট নয়। আম্পায়ার তৈরির আরও অনেক কিছু কাজ করা দরকার। অফ দ্য ফিল্ডেও অনেক কাজ আছে আম্পায়ারদের। শুধু মাঠে নয়, টিভি আম্পায়ারিংও করতে হয়। এ কারণে আম্পায়ারকে অনেক কিছু জানতে হয়।’

এসব হলেই কি ভালো মানের আম্পায়ার তৈরি হবে? আম্পায়ারদের মান বাড়াতে হলে আগে উন্নত করতে হবে ঘরোয়া ক্রিকেট। বাজে কিংবা বিতর্কিত আম্পায়ারিংয়ের যে চর্চাটা হয় ঢাকার ক্রিকেটে, ভালো মানের আম্পায়ার বেরিয়ে আসবে কী করে? জালাল স্বীকার করলেন, ঘরোয়া ক্রিকেট বিশেষ করে প্রিমিয়ার লিগে উন্নত আম্পায়ারিং হলে ভালো মানের আম্পায়ার বেরিয়ে আসতে পারে, ‘বিপিএল ছাড়া তো ঘরোয়া ক্রিকেটের কোনো ম্যাচ সম্প্রচার করা হয় না। প্রিমিয়ার লিগের ম্যাচ যদি সম্প্রচার হয়, ভালো মানের আম্পায়ার তৈরি হতে পারে। প্রিমিয়ার লিগে অন্তত ক্যামেরা থাকতেই হবে। ক্যামেরা ছাড়া ভালো আম্পায়ারিং সম্ভব না।’

২০১৯ বিশ্বকাপের গ্রুপপর্বে ১৬ আম্পায়ারের তালিকা : আলিম দার, কুমার ধর্মসেনা, মারাইস এরাসমাস, ক্রিস গ্যাফানে, ইয়ান গোল্ড, রিচার্ড ইলিংওয়ার্থ, রিচার্ড কেটেলবরো, নাইজেল লং, ব্রুস অক্সেনফোর্ড, সুন্দরম রবি, পল রেইফেল, রড টাকার, জোয়েল উইলসন, মাইকেল গফ, রুচিরা পাল্লিইয়াগুরুগে ও পল উইলসন।

এই ১৬ আম্পায়ারের মধ্যে উপমহাদেশ থেকে জায়গা পেয়েছেন মাত্র চারজন। এর মধ্যে শ্রীলঙ্কারই দুজন—কুমার ধর্মসেনা ও রুচিরা পাল্লিইয়াগুরুগে। ভারত ও পাকিস্তান থেকে জায়গা পেয়েছেন একজন করে আম্পায়ার—সুন্দরম রবি ও আলিম দার। ৩০ মে থেকে ইংল্যান্ডে শুরু হবে বিশ্বকাপ।

শেয়ার করুন:

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

error: Content is protected !!