শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৩ আশ্বিন ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

বাংলাদেশ-নিউ জিল্যাণ্ড টি-টোয়েন্টি সিরিজ

দাপুটে জয়ে সিরিজ শুরু বাংলাদেশের



নিউ জিল্যাণ্ডের বিপক্ষে বুধবার (০১ সেপ্টেম্বর) সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে ৭ উইকেটের দাপুটে জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। বাংলাদেশের দাপুটে জয়ের এই ম্যাচে টাইগারদের বিপক্ষে টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন কিউই দলপতি টম লাথাম। কিন্তু ব্যাটিংয়ে নামার পরপরই বাংলাদেশের স্পিনে দিশাহারা হয়ে পড়ে নিউ জিল্যাণ্ডের ব্যাটিং। প্রথম চার ওভারে হারায় তারা চার উইকেট। শেষ পর্যন্ত ধুঁকতে ধুঁকতে করতে পারে মোটে ৬০ রান। টি-টোয়েন্টিতে যা তাদের যৌথভাবে সবচেয়ে কম রানের স্কোর। বাংলাদেশের বিপক্ষে যে কোনো দলেরই সর্বনিম্ন স্কোর।

লড়াইয়ের শুরুতেই প্রায় ধ্বংসস্তুপে পড়েও ৯ রানে ৪ উইকেট হারানো দলকে উদ্ধারের চেষ্টা করেন দুই বাঁহাতি টম ল্যাথাম ও হেনরি নিকোলস। খর্বশক্তির এই নিউ জিল্যাণ্ড দলের মূল ভরসা এই দুজনই। ভালো একটি জুটি গড়ার ইঙ্গিতও দেন দুজন এক-দুই করে রান বাড়িয়ে।

কিন্তু স্পিন মোটামুটি সামলে দুজনই আউট হন পেসার মোহাম্মদ সাইফ উদ্দিনের বলে, দুজনই থামেন ১৮ রানে। শর্ট বল পুল করতে গিয়ে আকাশে তুলে দেন অধিনায়ক ল্যাথাম, স্লোয়ারে উড়িয়ে লং অনে ক্যাচ দেন নিকোলস। এই দুজনের পর আর সেভাবে দাঁড়াতে পারেননি কেউই। শেষ দিকে এসে দ্রুত তিন উইকেট নিয়ে লেজ ছেটে দেন মুস্তাফিজুর রহমান।

১৬.৫ ওভারেই শেষ হয় নিউ জিল্যাণ্ডের ইনিংস। গোটা ইনিংসে বাউন্ডারি কেবল ৩টি!

তবে মিরপুর শেরেবাংলা মাঠে মামুলি টার্গেটেও ব্যাট হাতে টাইগারদের শুরুটা ভালো ছিল না। দলীয় ১ রানেই প্রথম উইকেট খোয়ায় বাংলাদেশ। ৬ বল মোকাবিলার পর ব্যক্তিগত ১ রানে সাজঘরে ফেরেন নাঈম শেখ। পরের ওভারে পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত কিউই স্পিনার এজাজ প্যাটেলের বলে স্টাম্পিং হয়ে যান লিটন কুমার দাস। ৩ বলে ১ রান করেন টাইগার ওপেনার। এতে ২.৫তম ওভার শেষে ৭/২ সংগ্রহ নিয়ে কিছুটা চাপে পড়ে টাইগাররা। তবে দুই অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান সাকিব আল হাসান ও মুশফিকুর রহীম ক্রিজে থিতু হলে চাপ কাটে বাংলাদেশের। তৃতীয় উইকেটে ৩০ রানের জুটি গড়েন তারা। ব্যক্তিগত ২৫ রানে আউট হন সাকিব। ৩৩ বলের হিসেবি ইনিংসে সাকিব হাঁকান কেবল দুটি চার। ৯.৫তম ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ দাঁড়ায় ৩৭/৩-এ।

এরপর আর বিপদ হতে দেননি মুশফিক ও অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। চতুর্থ উইকেটে তাদের অবিচ্ছিন্ন ২৫ রানের জুটিতে শেষ পর্যন্ত সহজ জয়ই পায় বাংলাদেশ। মুশফিক ২৬ বলে ১৬ ও মাহমুদুল্লাহ ২২ বলে করেন ১৪ রান। মাহমুদুল্লাহর ইনিংসে দুটি মুশফিকের ইনিংসে ছিল একটি চারের মার। সিরিজ শুরুর আগে সতর্ক মনোভাবই প্রকাশ করেন টাইগাররা।

উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান নুরুল হাসান সোহান বলেছিলেন, অস্ট্রেলিয়ার সিরিজের মতো এটি হয়তো সহজ হবে না। তবে দলগতভাবে সবাই মিলে পারফর্ম করলে এই সিরিজও বাংলাদেশ জিতবে। গতকাল সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে টাইগারদের নৈপুণ্যে দেখা গেল তেমন কিছুই।

সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচ শুক্রবার।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

নিউ জিল্যান্ড: ১৬.৫ ওভারে ৬০ (ব্লান্ডেল ২, রবীন্দ্র ০, ইয়াং ৫, ডি গ্র্যান্ডহোম ১, ল্যাথাম ১৮, নিকোলস ১৮, ম্যাকনকি ০, ব্রেসওয়েল ৫, এজাজ ৩, টিকনার ৩*, ডাফি ৩; মেহেদি ৪-০-১৫-১, নাসুম ২-০-৫-২, সাকিব ৪-০-১০-২, মুস্তাফিজ ২.৫-০-১৩-৩, মাহমুদউল্লাহ ২-০-৮-০, সাইফ ২-০-৭-২)।

বাংলাদেশ: ১৫ ওভারে ৬২/৩ (নাঈম ১, লিটন ১, সাকিব ২৫, মুশফিক ১৬*, মাহমুদউল্লাহ ১৪*; এজাজ ৪-০-৭-১, ম্যাকনকি ৪-০-১৯-১, রবীন্দ্র ৪-০-২১-১, ডাফি ১-০-৩-০, ব্রেসওয়েল ১-০-৩-০, টিকনার ১-০-৯-০)।

ফল: বাংলাদেশ ৭ উইকেটে জয়ী।

সিরিজ: ৫ ম্যাচ সিরিজে বাংলাদেশ ১-০তে এগিয়ে।

ম্যান অব দা ম্যাচ: সাকিব আল হাসান।

শেয়ার করুন:

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

error: Content is protected !!