শুক্রবার, ৯ জুন ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ | ২৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

বালাগঞ্জে স্কুলছাত্রী সুমাইয়া হত্যাকারীদের বিচারের দাবিতে মানববন্ধন



বালাগঞ্জের বোয়ালজুড় ইউনিয়নের বাণীগাঁও (এসইএসডিপি) মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণির বিজ্ঞান বিভাগের মেধাবী শিক্ষার্থী সুমাইয়া বেগমের হত্যাকারীদের বিচারের দাবিতে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ উপলক্ষে সোমবার (৮ মে) দুপুর থেকে বালাগঞ্জ – তাজপুর সড়কে বোয়ালজুড় শাহ মকসুদ শাহ মনির উদ্দিন (রা.) হাফিজিয়া দাখিল মাদ্রাসা, বোয়ালজুড় বাজার উচ্চ বিদ্যালয়, বাণীগাও এসইএসডিপি মডেল উচ্চ বিদ্যালয়, তিলকচান পুর মোহাম্মদীয়া আলীম মাদ্রাসা, বালাগঞ্জ সরকারি ডিগ্রী কলেজ, বালাগঞ্জ সরকারি ডি.এন উচ্চ বিদ্যালয়, তয়রুননেছা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, মুসলিমাবাদ আর্দশ উচ্চ বিদ্যালয়, পূর্ব গৌরীপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী বৃন্দ এবং বোয়ালজুড় মাইক্রোবাস শ্রমিক উপ কমিটি তাজপুর, সিলেট জেলা অটোরিক্সা সিএনজি শ্রমিক ইউনিয়ন রেজি নং চট্ট ৭০৭ এর অন্তর্ভুক্ত বালাগঞ্জ উপ-পরিষদ, সিলেট জেলা শ্রমিক ইউনিয়ন রেজি নং বি-১৪১৮ এর অন্তর্ভুক্ত বালাগঞ্জ মাইক্রোবাস শ্রমিক উপ-কমিটি শ্রমিকবৃন্দ এবং ইলাশপুর বাজার নুরপুর গ্রামবাসী সহ উপজেলার বিভিন্ন স্তরের ব্যাক্তিবর্গ এ মানববন্ধন অংশ গ্রহণ করেছেন। ‘জাস্টিস ফর সুমাইয়া ক্যাম্পেইন ইউকে’ ও ‘শহীদ সুমাইয়া সংগ্রাম পরিষদের’ যৌথ উদ্যোগে উপজেলার দু’টি স্থানে ওই মানববন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়।মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভায় সুমাইয়ার মা ফাতেহা বেগম, ভাই ইসকন্দর মিয়া উপস্থিত হয়ে সাংবাদিকদের কাছে পুলিশরে প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করেন। পৃথক মানববন্ধনে- বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা ব্যানার, ফেস্টুন ও প্ল্যাকার্ড নিয়ে অংশগ্রহণ করে সুমাইয়ার খুনিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান। মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভায় বক্তারা অভিযোগ করে বলেন, নূরপুর হেকিম আলী গ্রামের আইন উল্যার মেয়ে সুমাইয়া ১ ভাই ও ১০ বোনের মধ্যে ছোট ছিল। ক্লাসে তার রোল নম্বর ছিল-৩। ২২শে মার্চ তার লাশ উদ্ধারের পর থেকে পুলিশ দায়সারা মনোভাব দেখিয়ে আসছে। দেড় মাস সময় অতিবাহিত হয়ে গেছে। এই মামলায় দু’জনকে গ্রেপ্তার করা হলেও আসামিদের স্বীকারোক্তি কিংবা হত্যার রহস্যের বিষয়ে পুলিশ কিছুই বলছে না। উল্টো আন্দোলন কর্মসূচি থেকে সরিয়ে রাখতে পুলিশ এলাকাবাসীকে চাপে রেখেছে।সুমাইয়ার ভাই ইসকন্দর মিয়া মানববন্ধনে বলেন, এই মামলায় বর্তমানে জেলে থাকা দুইজনের মধ্যে জাহাঙ্গীর আমার বোনের হত্যাকারী। আমি নিশ্চিত সে আমার বোনকে হত্যা করেছে কিন্তু পুলিশ এ বিষয়ে কোনো তথ্য প্রকাশ করছে না। আমি ঘাতকদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।উল্লেখ্য, চলতি বছরের বিগত ২২ মার্চ বালাগঞ্জ উপজেলার বোয়ালজুর ইউনিয়নের বাণীগাঁও এসইএসডিপি মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ে পড়ুয়া দশম শ্রেণীর ছাত্রী সুমাইয়া প্রাইভেট পড়তে যাওয়ার পথে খুন হয়। পরে বিকেলে পেকুয়া ব্রিজের নিকটবর্তী একটি খালপাশ থেকে তাঁর লাশ উদ্ধার করা হয়। ২৩ মার্চ নিহতের ভাই ইসকন্দর মিয়া বালাগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। মামলা নং-০৬।এর প্রেক্ষিতে বালাগঞ্জ থানা পুলিশ সন্দেহজনক ভাবে দুইজনকে আটক করে। আটককৃরা বর্তমানে কারাগারে রয়েছে।

শেয়ার করুন:

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

error: Content is protected !!