শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ক্ষণস্থায়ীদের বিপরীতে এক চিরস্থায়ী।। হাবীব নূহ



মূল্যবান কোন গিফট যখন কেউ গ্রহণ করে তখন একটি বিষয় সে নিশ্চয় অনুধাবন করে থাকে, আর তা হল সে যে উপহারটি গ্রহণ করেছে সেই গিফটটি দৃষ্টিনন্দন মোড়কে মোড়ে অতপর আকর্ষণীয় বক্সে ভরে তাকে দেওয়া হয়েছে। অর্থাৎ গিফট-বক্সে দেওয়া হয়েছে।
এখানে বাক্সের ভিতরের গিফটই মূল উপহার। মোড়ক আর বাক্স কখনো মুখ্য কোন বিষয় নয়। এগুলো হল মূল উপহারকে সুরক্ষিত করে দেওয়া এবং সাথে সাথে সুন্দর ও শালীন ভাবে উপস্থাপনা করা। কারণ বাক্স-বন্দী উপহারে ফুটে উঠে উপহার দাতার রুচি।

ঠিক তেমনি ভাবে,অল-কুরআনের ব্যাপারটিও অনুধাবন যোগ্য। কারণ—কুরআন,পৃথিবী ও পৃথিবীর মানব ও দানবের জন্য এক মহা-উপহার।শ্রেষ্ঠ দান।
মহীয়ান আল্লাহ যিনি কুরআনের প্রেরক। তিনি তাঁর আল-কুরআনের এই গিফটকে, রামাদ্বান নামের একটি মাসের বাক্সে ঢুকায়ে, লাইলাতুল ক্বাদারের একটি রজনীর মোড়কে মোড়ে, অতঃপর বাহক জিবরাঈল আলাইহিস সালামকে দিয়ে,ধারক মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের মাধ্যমে, প্রাপক উম্মাহের কাছে সেটি প্রেরণ করেছেন।

মোড়ক আর বক্সকে যেমন সাধারণত রাখা হয় না। ভিতরের গিফটকে গ্রহণ করে বক্স ও মোড়ক সরিয়ে ফেলা হয় তেমনি রামাদ্বান আর লাইলাতুল ক্বাদরকে আর সব সময় রাখার দরকার নেই কারণ কুরআন তো মানব পেয়ে গেছে।

কুরআন তো সব সময় মানুষের মাঝে থাকবে। এমনকি মানুষ মারা গেলেও কুরআন হয়ত তাঁর সাথে থাকবে।মানুষ মারা গেলে তখন রামাদ্বান মাস এবং ক্বাদারের রাতকে সে আর পাবে না। এ নশ্বর দুনিয়ায় পড়ে থাকবে রামাদ্বান আর লাইলাতুল ক্বাদার।

কবর ও হাশরে রামাদ্বান আর লাইলাতুল ক্বাদার থাকবে না কিন্তু কুরআন হয়ত তখনো মানুষের পাশে থাকবে যেমন পৃথিবীতে এই কুরআনের পাশেই ছিল এই মানুষটি। জান্নাতে অন্তত সে পাশে পাবে কুরআনকে। পাবে কুরআনের ধ্বনি।হয়ত সেখানে সে কুরআনের ক্বিরাআত করবে অথবা সে শুনতে পাবে কুরআনের তিলাওয়াত।

রাত ক্বাদর এবং মাস রামাদ্বান সেখানে থাকবে না। সেখানে এগুলোর আর প্রয়োজন নেই।রামাদ্বান আর ক্বাদর, এ গুলো ক্ষণস্থায়ী। এগুলো তো এ পৃথিবীর জন্য। যদিও এগুলো পরপারের উন্নতির একেক সোপান। তবুও এগুলো অস্থায়ী। কারণ পরকালে তো আর আমল করা লাগবে না। তাই আমালের উপকরণ আর উপাদানের দরকার কি।

স্রষ্টার কালাম কি কখনো অস্থায়ী হয়? না! কখনো হয় না।হতে পারে না। তাই তো সুমহান আল-কুরআন চিরস্থায়ী।
ক্ষণস্থায়ী রামাদ্বান মাস আর ক্বাদারের রাতের সাময়িক আবরণে পৃথিবী পেয়েছে এক চিরস্থায়ী সওগাত।চিরন্তন উপঢৌকন।
রামাদ্বান আর ক্বাদার তো বিদায় হয়ে হবে কিন্তু কুরআন তো থাকবে মানুষের মধ্যে। আমাদের মাঝে।

লেখক: মুফতি

শেয়ার করুন:

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন