শুক্রবার, ৭ অক্টোবর ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ২২ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

গহরপুর মাদ্রাসার ৬২তম বার্ষিক ওয়াজ মাহফিল সম্পন্ন



আল্লাহর মনোনিত দ্বীন তথা ইসলাম মানব জাতির জন্য এক বিরাট নেয়ামত। আল্লাহর নিকট যে আত্মসমর্পণ করেছে সে ব্যক্তিই মুসলমান। তিনি আল্লাহর দ্বীনের মধ্যে প্রবেশ করেছেন। দ্বীন অর্থ জীবনব্যবস্থা, আল্লাহর মনোনিত জীবনব্যবস্থাটির নাম হলো ইসলাম। মহান আল্লাহ মানুষকে দিয়েছেন সৃষ্টির সেরা জীবের মর্যাদা। দিয়েছেন বিবেক বুদ্ধির ন্যায় অমূল্য সম্পদ। কিয়ামতের কঠিন দিনে জীবনের প্রতিটি সময়ের হিসেব দিয়েই নাজাতের পথে অগ্রসর হতে হবে। কারণ জৈবিক শক্তি এবং নৈতিক শক্তি দিয়ে আল্লাহ মানুষকে করেছেন নৈতিকতা বোধ সম্পন্ন বিবেকবান শ্রেষ্ঠজীব। তাই ইহ ও পরকালীন কল্যাণের জন্য কোরআন ও হাদিসের আলোকে জীবন গড়তে হবে।

প্রখ্যাত বুযুর্গ শায়খুল হাদিস আল্লামা হাফিজ নূর উদ্দিন আহমদ গহরপুরী (রহ.) প্রতিষ্ঠিত ঐতিহ্যবাহী জামিয়া ইসলামিয়া হোসাইনিয়া গহরপুর মাদ্রাসার ৬২তম বার্ষিক ওয়াজ মাহফিলে বক্তাগন উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।

২১ ডিসেম্বর (বৃহস্পতিবার) দুপুর থেকে শুরু হয়ে শুক্রবার ভোর পর্যন্ত এ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। জামিয়ার মুহতামিম হযরত মাওলানা হাফিজ মুসলেহুদ্দিন রাজুর সভাপতিত্বে দিবারাত্রির এ মাহফিলে প্রধান অতিথি হিসেবে নসীহত পেশ করেন দারুল উলূম দেওবন্দের শিক্ষাসচিব মাওলানা আফজাল হুসাইন কাইমুরী (ভারত)। নসীহত পেশ করেন জামিয়ার মুহাদ্দিস মাওলানা আব্দুস সাত্তার (হেমু), মাওলানা সাদ উদ্দিন (বাদেশ্বরী), গলমুকাপন মাদ্রাসার মুহতামিম মাওলানা শায়খ আব্দুস শহিদ (গলমুকাপনী), মতিনিয়া হেতিমগঞ্জ মাদ্রাসার মুহতামিম মাওলানা আব্দুস সালাম (ছিরামপুরী), রেঙ্গা মাদ্রাসার মুহতামিম মাওলানা মুহিউল ইসলাম বুরহান, বিশিষ্ট মিডিয়া ব্যক্তিত্ব মাওলানা শরীফ মুহাম্মদ, সিলেট জেলা বেফাকের সহসভাপতি মাওলানা নজমুদ্দিন কাসেমী, সিলেট জেলা বেফাকের সেক্রেটারী মুফতী আবুল হাসান (জকিগঞ্জি), মাওলানা সাইফুল ইসলাম (কাতার), মাওলানা মুস‘আব (ফিলিপাইন), মাওলানা আব্দুর হাই বাহুবলীসহ প্রমুখ আলেম ও উলামায়ে কেরাম।

মাহফিলে সিলেট- ৩ আসনের মহাজোট তথা নৌকার মনোনীত সংসদ সদস্য প্রার্থী আলহাজ্ব মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী এমপি, বিএনপির নেতৃত্বাধীন জোটের মনোনীত সংসদ সদস্য প্রার্থী ও সাবেক সংসদ সদস্য আলহাজ্ব শফি আহমদ চৌধুরী, জাপার মনোনীত সংসদ সদস্য প্রার্থী মো. উসমান আলী, বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের মনোনীত সংসদ সদস্য প্রার্থী হাফিজ মাওলানা আতিকুর রহমান, বালাগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মো. আব্দাল মিয়া, বালাগঞ্জ উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান হাজী মো. মোস্তাকুর রহমান মফুর, সাবেক সংসদ সদস্য এম ইলিয়াস আলীর ভাই, বিএনপির নেতা মো. আছকির আলীসহ বিভিন স্তরের জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ সংক্ষিপ্ত বক্তৃতা করেন ও উপস্থিত ছিলেন।

এসময় তাঁরা স্বস্ব অবস্থান থেকে সকলের কাছে দোয়া কামনা করেন । উক্ত মাহফিলে এলাকাবাসীসহ দেশবিদেশ থেকেও আগত হাজার হাজার ধর্মপ্রাণ মুসল্লি শরিক হন। আল্লামা গহরপুরী (রহ.)’র ভক্ত, মুরিদান, ছাত্ররা রাতব্যাপী মাহফিলের পাশাপাশি তাঁহার মাজার জিয়ারতের মাধ্যমেও প্রখ্যাত এ বুযুর্গকে শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করেন।

এ ছাড়াও মাহফিলটি সামাজিক যোগাযোগব্যবস্থা ফেইসবুকে সরাসরি সম্প্রচার করা হয়। এতে করে বহির্বিশ্বে অবস্থানরত জামিয়ার ছাত্র ও প্রখ্যাত বুযুর্গ হযরত আল্লামা হযরত গহরপুরী (রহ.) এর অসংখ্য ভক্ত আশেকানগন অনুষ্ঠানটি সরাসরি উপভোগ করেন।

২১ ডিসেম্বর শুক্রবার বাদ ফজর ভারতের দারুল উলূম দেওবন্দের শিক্ষাসচিব মাওলানা আফজাল হোসাইন কাইমুরীর আখেরি মোনাজাতের মাধ্যমে মাহফিলের সমাপ্তি হয়।

শেয়ার করুন:

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

error: Content is protected !!