মঙ্গলবার, ৩ অগাস্ট ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১৯ শ্রাবণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

এমপি মোকাব্বির খানের বিরুদ্ধে ওসমানীনগরে ঝাড়ু মিছিল



গণফোরামের কেন্দ্রীয় নেতা ও সিলেট ২ (ওসমানীনগর-বিশ্বনাথ) আসনের নির্বাচিত এমপি মোকাব্বির খানের বিরুদ্ধে উন্নয়নে বাঁধাদানসহ জনবিচ্ছিন্নতার অভিযোগে ওসমানীনগরে অনুষ্টিত হয়েছে ঝাড়ু মিছিল।

আজ সোমবার বিকেল সাড়ে ৫ টার দিকে উপজেলার গোয়ালাবাজারে উন্নয়ন বঞ্চিত ওসমানীনগরবাসীর ব্যানারে ঝাড়ু মিছিলটি অনুষ্ঠিত হয়।

এলাকার শতাধিক যুবকরা মিলে ঝাড়ু হাতে ব্যানার সহকারে উপজেলার সিলেট-ঢাকা মহাসড়কের উত্তর গোয়ালাবাজার আনোয়ারা ম্যানশনের সামন থেকে বিক্ষোভ মিছিল শুরু করে বিভিন্ন প্রকার ভর্ৎসনামূলক শ্লোগান দিয়ে দক্ষিণ গোয়ালাবাজার এলাকার প্রদক্ষিণ শেষে হারুন ম্যানশনের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ করেন মিছিলকারীরা।

প্রতিবাদ সমাবেশে এমপি মোকাব্বির খানের বিরুদ্ধে গোয়ালাবাজারসহ উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় উন্নয়ন বঞ্চিত করার অভিযোগসহ সংঘবদ্ধ চক্রের মাধ্যমে পরিকল্পিতভাবে সরকারী বরাদ্ধের টাকা আত্মসাৎসহ লুটপাঠের অভিযোগ করেন তারা।

প্রতিবাদ সভায় বক্তব্যে যুবলীগ নেতা ইউপি সদস্য সৈয়দ মাসুদ আলী অভিযোগ করে বলেন- এমপি মোকাব্বির খান এমপি নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে জামায়াত-শিবির অনুসারীদের পূনর্বাসন ছাড়াও উপজেলার ৮ ইউনিয়নের জন্য আসা সরকারী বরাদ্ধ নিয়ামনীতির তোয়াক্কা না করে সিন্ডিকেটের মাধ্যমে লুটেপুটে খাচ্ছেন। তিনি নিজ স্বার্থ হাছিলে মেতে উঠে উপজেলার টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজ, ৪ তলা বিশিষ্ট মাছ বাজারের ভবনসহ বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প সংশ্লিষ্ট এলাকাবাসীকে বঞ্চিত করে মনগড়া সুপারিশ করার কাজে লিপ্ত রয়েছেন। জনবিচ্ছিন্ন এই এমপির কারণে ওসমানীনগরের অধিকাংশ এলাকা উন্নয়ন বঞ্চিত রয়েছে। এমপি মোকাব্বির রাজাকার পুত্রদের সম্মন্নয়ে এলাকায় একটি চিহ্নিত সিন্ডিকেট গড়ে তুলে উন্নয়নের নামে পুকুর চুরিতে মেতে উঠায় সরকারের ঘোষিত উন্নয়ন কর্মকান্ড বাঁধাগ্রস্থ জনমনে বিরুপ প্রতিক্রিয়াসহ সরকারের ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন হচ্ছে। এমপি মোকাব্বিরের এসব লুটপাঠকে ঘিরে ইতিপূর্বে স্থানীয়দের পক্ষ থেকে প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরের লিখিত অভিযোগ প্রদান করা হয়েছে।

ঝাড়ু মিছিলে উপস্থিত ছিলেন- ইউপি সদস্য সৈয়দ মাসুদ আলী, জুনেদ আহমদ, সাইফুল ইসলাম, সজিব ধর, রুমেল আহমদ, আক্কাস আলী, রুবেল রাজ, মিঠু দত্ত, হুসাইন আহমদ, নাহিদ আহমদ, মামুল আলী, রনি মালাকার, ফাহিম আহমদ, সাগর দাস, রাহি আহমদ, মিলন আহমদ, মামুন আহমদ, মিলাদ আহমদ, লিকসন মিয়া, আমিনুর রহমান, আলাউদ্দিন রাজু, সাবলু মিয়া, সুহেল,বাদশা শিকদারসহ এলাকার বিভিন্ন শ্রেনীপেশার শতাধিক যুবক।

সমাবেশে বিগত দুই বছরে এমপির মাধ্যমে ওসমানীনগর উপজেলায় আসা সরকারী বরাদ্ধের নামে বেনামে বাস্থবায়িত প্রকল্পগুলো সুষ্ট তদন্তপূর্বক জড়িতদের বিরুদ্ধে আনানুগ ব্যবস্থা নেয়ার জন্য প্রশাসনের প্রতি জোর দাবি জানান উপস্থিত ব্যাক্তিবর্গ।

শেয়ার করুন:

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

error: Content is protected !!