রবিবার, ২২ মে ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

দাপুটে সিরিজ জয়



প্রথম ওয়ানডেতে ৪ উইকেটের অবিশ্বাস্য জয়ের পর আজ দ্বিতীয় ওয়ানডেতে ৮৮রানের জয় পেলো টাইগাররা। আজকের জয়ের ফলে এক ম্যাচ হাতে রেখে দাপটের সঙ্গেই আফগানিস্তানের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ নিশ্চিত করে ফেলল বাংলাদেশ।

চট্টগ্রামে সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডেতে আজ শুক্রবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) প্রথমে ব্যাটিং করে ৪ উইকেটে ৩০৬ রান করে থামে টাইগাররা। জবাবে এক সময় ব্যাট হাতে ম্যাচের লাগাম টেনে ধরেন রহমত শাহ ও নাজিবুল্লাহ জাদরান। কিন্তু তাতে কোনো লাভ হয়নি। শেষ হাসি হেসেছেন তামিম-সাকিবরা। ৮৮রানে জিতে সিরিজ লুফে নিয়েছেন তাঁরা।

এদিন বাংলাদেশের দেয়া ৩০৭ রানের জবাবে ২১৮ গুটিয়ে যায় আফগানিস্তান। এছাড়া ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে উইকেটের দেখা পায় বাংলাদেশ। শরিফুল ইসলামের বলে সাজঘরে ফিরেন রিয়াজ হাসান। তিনি ২ বলে ১ রান করেন। এরপর দলীয় ১৬ রানে আফগানিস্তানের অধিনায়ক হাশমতুল্লাহ শহীদি আউট হন। ৩ বলে ৫ রান করেন তিনি। এরপর সাকিব আজমতুল্লাহকে আউট করেন। তিনি ১৬ বলে ৯ রান করে। পাওয়ার প্লের প্রথম ১০ ওভারে ৩ উইকেট হারিয়ে ৩৬ রান তোলে আফগানিস্তান।

তাদের টুটি চেপে ধরে টাইগার বোলাররা। তবে সাবধানে খেলতে রহমত শাহ ও নাজিবুল্লাহ জাদরান। তারা দুজন প্রতিরোধ গড়ে তুলেন। তবে দলীয় ১২৩ রানে রহমতকে বোল্ড করে স্বস্তি ফেরান তাসকিন আহমেদ। তিনি ৭১ বলে ৪ চারে ৫২ রান করেন । হাফসেঞ্চুরি করেছিলেন ৬৯ বলে। তার আউটে ভেঙে যায় ৮৯ রানের জুটি। এরপর নিয়মিত বিরতিতে উইকেট খোয়াতে থাকে আফগানিস্তান।

এদিকে চট্টগ্রামে আফগানিস্তানের বিপক্ষে দ্বিতীয় ওয়ানডে ম্যাচে শুক্রবার লিটন ও মুশফিকের ব্যাটে ঝড় দেখছে ভক্তরা। তাদের ব্যাটিং তান্ডবে স্বস্তি পাচ্ছিলনা মুজিব-রশিদ খানরা। এমন সময় ফরিদ আহমেদ বিপদ ডেকে আনলেন বল হাতে। তার চমৎকার বলে লিটন সাজঘরে ফিরেন। যাবার আগে ব্যাট হাতে ঝড় তুলে ২ ছক্কা ও ১৬ চারের সাহায্যে ১২৬ বলে ১৩৬ রান করেন। দ্রুত রান তুলতে গিয়ে পরের বলেই বিদায় নেন মুশফিক। ফরিদের বলে ক্যাচ তুলে সাজঘরে ফিরেন মুশফিক। তারা দুজন ১৮৮বলে ২০২ রানের জুটি গড়ে আউট হন। মুশফিক আউট হন ৮৬ রান তুলে। এরপর মাহমুদউল্লাহ ৬ ও আফিফ ১৩ রানে অপরাজিত ছিলেন।

দিনের শুরুতে চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে লিটনের সামনে পাত্তা পায়নি রশিদ-মুজিবরা। তাদের পাড়া-মহল্লার বলার এ পরিণত করেছেন টাইগার এই ওপেনার। আফগান বোলারদের পিটিয়ে তুলোধুনা করে সেঞ্চুরি তুলে নেন লিটন। এটি তার ক্যারিয়ারে পঞ্চম শতক। তিনি রশিদ খানের বলে চার মেরে সেঞ্চুরি পূরণ করেন। সে সময় তাকে অভিনন্দন জানান বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। এর আগে দলীয় ৩৮ রানে অধিনায়ক তামিম আউট হলে হাল ধরেন লিটন-সাকিব। তাদের ব্যাটে ভর করে ভালোই এগোচ্ছিল বাংলাদেশ। কিন্তু রশিদ খান নিজের দ্বিতীয় ওভারে সাকিবকে আউট করেন। তিনি ৩৬ বলে ৩০ রান করেন।
লড়াকু আফগানদের বিপক্ষে সিরিজটি আশা-শঙ্কার দোলাচল নিয়েই শুরু করেছিল বাংলাদেশ। সিরিজ জয় আর দুই ম্যাচের ২০ পয়েন্ট তাই নিশ্চিতভাবেই স্বস্তির সুবাতাস বইয়ে দেবে ড্রেসিং রুমে। লক্ষ্য এবার শেষ ম্যাচ থেকে আরও ১০ পয়েন্টের।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

বাংলাদেশ: ৫০ ওভারে ৩০৬/৪ (তামিম ১২, লিটন ১৩৬, সাকিব ২০, মুশফিক ৮৬, মাহমুদউল্লাহ ৬*, আফিফ ১৩*; ফারুকি ১০-১-৫৯-১, ফরিদ ৮-০-৫৬-২, মুজিব ১০-০-৪৯-০, ওমরজাই ৭-০-৩৭-০, রশিদ ১০-০-৫৪-১, নবি ৪-০-২৬-০, রহমত ১-০-১০-০)।

আফগানিস্তান: ৪৫.১ ওভারে ২১৮ (রহমত ৫২, রিয়াজ ৫, শাহিদি ১, ওমরজাই ৯, নাজিবউল্লাহ ৫৪, নবি ৩২, গুরবাজ ৭, রশিদ ২৯, মুজিব ; মুস্তাফিজ ৮-০-৫৩-১, শরিফুল ৭-০-৪৪-১, তাসকিন ১০-২-৩১-২, সাকিব ৯-০-২৯-২, মিরাজ ১০-০-৫২-১, মাহমুদউল্লাহ ১-০-২-১, আফিফ ০.১-০-০-১)

ফল: বাংলাদেশ ৮৮ রানে জয়ী

সিরিজ: ৩ ম্যাচ সিরিজে বাংলাদেশ ২-০তে এগিয়ে

ম্যান অব দা ম্যাচ: লিটন কুমার দাস

শেয়ার করুন:

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

error: Content is protected !!