বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৪ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ইংল্যাণ্ডের বিপক্ষে ঐতিহাসিক সিরিজ জয় বাংলাদেশের



ছবি: সংগৃহীত

টেস্ট খেলুড়ে দেশগুলোর বিপক্ষে কোনো না কোনো ফরম্যাটে সিরিজ জয়ের রেকর্ড ছিল টাইগারদের। তবে সেই তালিকাতে ছিল না ইংল্যাণ্ডের নাম। তার উপর ২০২২ এর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে তারা শিরোপাধারী দল। তাই ইতিহাস বদলাতে হলে চ্যাম্পিয়নদের হারাতেই হতো। চট্টগ্রামে প্রথম ম্যাচে জয়ের পর মিরপুরে টাইগারদের সামনে ছিল তারই হাতছানি। অবশ্য বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ইংল্যাণ্ডকে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে রবিবার (১২ মার্চ) ৪ উইকেটে হারিয়ে এক ম্যাচ হাতে রেখেই ইতিহাস গড়ে সিরিজ জিতে টাইগাররা মিটিয়ে দিয়েছে সেই আক্ষেপ।

হোম অব ক্রিকেট মিরপুরে টসে জিতে আগে বল করার সিদ্ধান্ত নেন টাইগার অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। আগে ব্যাট করতে নেমে ২০ ওভারে সবকটি উইকেট হারিয়ে মাত্র ১১৭ রানেই গুটিয়ে যায় বাটলার বাহিনী। ১১৮ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই হতাশ করেন ওপেনার লিটন দাস। মাত্র ৯ রানে সাজঘরে ফেরেন তিনি। আরেক ওপেনার রনি তালুকদারও ইনিংস বড় করতে পারেননি। তিনিও আউট হন ৯ রান করে। এক প্রান্ত আগলে রেখে ব্যাটিং চালিয়ে যান আগের ম্যাচের ম্যাচসেরা নাজমুল হোসেন শান্ত। তৌহিদ হৃদয় ১৭ রানে আউট হলেও মারমুখী ছিলেন মেহেদী হাসান মিরাজ। ১৬ বলে ২০ রান করে মেহেদী সাজঘরে ফেরার পর চমক দেখাতে পারেননি অধিনায়ক সাকিব। রানের খাতা না খুলেই মাঠ ছাড়েন টাইগার অধিনায়ক। ৩ বলে ২ রান করে আউট হন আফিফ।

এর আগে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে ইংল্যান্ড। টাইগারদের প্রথম ব্রেক থ্রু এনে দেন তাসকিন। ওপেনার ডেভিড মালানকে ৫ রানে সাজঘরে ফেরান এই পেসার। এরপর আরেক ওপেনার ফিল সল্টকে ২৫ রানে সাজঘরে ফেরান সাকিব। অধিনায়ক বাটলারকে বেশিদূর এগুতে দেননি হাসান মাহমুদ। ইংলিশদের হয়ে সর্বোচ্চ ২৮ রান করেন বেন ডাকেট। এর মধ্যে মঈন আলির ১৫, স্যাম কারানের ১২ ও রেহান আহমেদের ১১ রানের সুবাদে কোনরকমে ১১৭ রানের পুজি পায় বাটলার বাহিনী।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

ইংল্যান্ড: ২০ ওভারে ১১৭ (সল্ট ২৫, মালান ৫, মইন ১৫, বাটলার ৪, ডাকেট ২৮, কারান ১২, ওকস ০, জর্ডান ৩, রেহান ১১, রশিদ ১*, আর্চার ০, তাসকিন ৪-০-২৭-১, মুস্তাফিজ ৪-০-১৯-০, নানুম ১-০-১৩-০, সাকিব ৩-০-১৩-১, হাসান ২-০-১০-১, মিরাজ ৪-০-১২-৪, শান্ত ১-০-৯-০, আফিফ ১-০-৭-০)।

বাংলাদেশ: ১৮.৫ ওভারে ১২০/৬ (লিটন ৯, রনি ৯, শান্ত ৪৬*, হৃদয় ১৭, মিরাজ ২০, সাকিব ০, আফিফ ২, তাসকিন ৮*; কারান ৩-০-১৫-১, ওকস ১-০-৭-০, আর্চার ৪-০-১৩-৩, মইন ৪-০-২৫-১, রশিদ ৪-০-২৮-০, রেহান ২-০-১১-১, জর্ডান ০.৫-০-১৫-০)।

ফল: বাংলাদেশ ৪ উইকেটে জয়ী।

সিরিজ: ৩ ম্যাচ সিরিজে বাংলাদেশ ২-০তে এগিয়ে।

ম্যান অব দা ম্যাচ: মেহেদী হাসান মিরাজ।

শেয়ার করুন:

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

error: Content is protected !!